প্রাকৃতিক উপায়ে ওজন কমানোর উপায় । Tista BD

প্রাকৃতিক উপায়ে ওজন কমানোর উপায়

বেশি কোন কিছুই যেমন ভালো না তেমনি শরীরে অতিরিক্ত ওজন অনেক সময় বিপজ্জনক হয়ে পড়ে।  অনেকে হয়তো শরীরের ওজন কমানোর জন্য অনেক চেষ্টা করেছেন, কিন্তু  ভালো কোন ফলাফল পাননি।  অনেকে আবার ওজন কমানোর জন্য না খেয়ে থাকেন অথবা থাকছেন।  আপনি মনে করছেন যে না খেয়ে থাকলে শরীরের ওজন কমবে, তেমনি না খেয়ে থাকলে আপনার শরীরের সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হতে পারে। সবচেয়ে কার্যকারী উপায় হল নিয়মিত ডায়েট মেনে আস্তে আস্তে ওজন কমিয়ে ফেলা। এর জন্য আপনাকে না খেয়ে থাকতে হবে না, শুধু আপনার খাদ্যের তালিকা টা পরিবর্তন করতে হবে এবং নিয়মমাফিক ব্যায়াম করতে হবে।

গ্রিন টি পান করুন :

প্রতিদিন গ্রিন টি পান করার ফলে ওজন হ্রাস পায়।  তাই প্রতিদিন ৩-৪ কাপ গ্রিন টি পান করুন যার ফলে আপনার শরীরের মেটাবলিজম বৃদ্ধি হবে এবং আপনার শরীরের অতিরিক্ত ওজন কমিয়ে ফেলবে।

ফলমূল ও শাকসবজি খান:

ফলমূল এবং শাকসবজি ওজন কমাতে সহায়ক খাবার। এগুলো পানি, পুষ্টি এবং ফাইবার সমৃদ্ধ । অনেক গবেষণায় দেখা গেছে যারা বেশি ফল ও সবজি খান তাদের ওজন দ্রুত কমে যায়। এ জন্য আপেল, কমলা, মাল্টা ও মৌসুমি পেঁপে, তরমুজ, বরই ইত্যাদি এবং সবজিতে লাউ, বেগুন, পালং শাক, মেথি ইত্যাদি সহজে গ্রহণ করা যায়।

পানি পান করুন:
আপনার ওজন কমানোর জন্য প্রচুর পানি পান করুন। প্রত্যেক বার ক্ষুধার্ত অনুভব হলে অথবা খাবার খাওয়ার আগে পানি পান করুন। এভাবে নিয়মিত পানি পান  করার ফলে সহজে ওজন কমানো সম্ভব ।

চিনি না খাওয়া :

চিনি খাওয়া একেবারে ছেড়ে দিন। এক চা চামচে মোট ১৬ শতাংশ ক্যালরি থাকে। তাই চায়ে বা দুধে কখনোই চিনি দিয়ে খাবেন না।

তাড়াতাড়ি রাতের খাবার খাওয়া :

যত তাড়াতাড়ি সম্ভব রাতের খাবার খেয়ে নিন। কারণ, রাতে খাবার খেয়েই শুয়ে পড়লে ওজন বেড়ে যায়। আর রাতে যদি খিদে পায় তখন এক গ্লাস দুধ খেতে পারেন।

হাঁটা:

মানব শরীরের জন্য হাঁটা খুবই উপকৃত বিষয় । প্রতিদিন অন্তত আধা ঘণ্টা থেকে ঘণ্টাখানেক সমান গতিতে হাঁটতে পারলে ওজন খুবই তাড়াতারি কমবে।  এই হাঁটার ফলে প্রায় ১৫০ ক্যালোরি পর্যন্ত বার্ন হতে পারে। তাই ওজন কমাতে চাইলে নিয়মিত সকাল-বিকেল নিয়ম করে হাঁটতে পারেন। প্রতি দিন হাঁটার ফলে দ্রুত আপনার ওজন কমবে।
পুশ আপ:

এই ব্যায়ামের ক্ষেত্রেই উপুড় হয়ে শুয়ে পড়ুন মাটিতে। কাঁধ বরাবর হাত রাখুন, পা দুটো জোড়া করে রাখতে হবে। তার পর হাতের তালু আর পায়ের আঙুলে ভর দিয়ে শরীরটাকে মাটির দিকে নামিয়ে আনুন, আবার উপরে তুলুন। প্রতিদিন এই ব্যায়ামের ফলে দ্রুত আপনার ওজন কমবে এবং একইসঙ্গে আরও শক্তিশালী হয়ে উঠবেন।

দড়ি লাফ বা স্কিপিং :

অনেকেই কর্মব্যস্ততার কারণে নিয়মিত হাঁটার সময় পান না। তাদের জন্য দড়ি বা স্কিপিং হতে পারে সেরা উপায়। দড়ি লাফের মাধ্যমে দ্রুত ক্যালোরি বার্ন করা যায়। গবেষণা বলছে, ১০ মিনিট হাঁটার চেয়ে দৈনিক ১০ মিনিট দড়ি লাফ দিলে বেশি ক্যালোরি বার্ন করা যায়। ফলে দ্রুত আপনার ওজন কমাতে এই ব্যায়ামটি করতে পারেন ।

সাঁতার:

সাতাঁর ওজন কমানোর আরও একটি সেরা ব্যায়ামগুলোর মধ্যে অন্যতম। সাঁতারের মাধ্যমে শরীরের বিভিন্ন জয়েন্টগুলো আরও শক্তিশালী হয়। সপ্তাহে ৩-৪ দিন অন্তত ১৫-৩০ মিনিটের জন্য সাঁতার কাটলে হৃদরোগ, স্ট্রোক, ডায়াবেটিসসহ ক্যান্সারের ঝুঁকি ও এটি খারাপ কোলেস্টেরল এবং রক্তচাপ কমায় ।

সাইক্লিং:

ওজন কমানোর আরও একটি দুর্দান্ত উপায় হলো সাইক্লিং। প্রতিদিন আধা ঘণ্টা থেকে এক ঘণ্টা সাইক্লিং করলে ৪০০-৭৫০ ক্যালোরি পর্যন্ত বার্ন হয়। যার ফলে ওজন কমাতে খুব দ্রুত কাজ করে।

সিঁড়ি আরোহণ:

অনেকের ঘরেই বিভিন্ন শরীরচর্চার সরঞ্জাম না থাকায় ব্যায়াম করতে পারেন না। তারা চাইলে সিঁড়িতে ওঠানামা করার মাধ্যমে ওজন কমাতে পারবেন। নিজেকে সুস্থ রাখতে এটি করতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Main Menu